1. admin@bbcnewsbangla.com : admin :
  2. Sadiafrin011210@gmail.com : সাদিয়া আফরিন : সাদিয়া আফরিন
  3. infomvaly@gmail.com : সবুজ দাস : সবুজ দাস
  4. engr.mahadiviruss@gmail.com : Mahadi Hasan : Mahadi Hasan
শনিবার, ২১ নভেম্বর ২০২০, ০১:২৭ অপরাহ্ন
ব্রেকিং নিউজ
***পরীক্ষামূলক সম্প্রচার*** বাংলাদেশের সকল যায়গা থেকেই শিক্ষানবিশ সাংবাদিক নেওয়া হচ্ছে, যারা আগ্রহী তারা ছবি, ভোটার আইডি কার্ড, মোবাইল নাম্বার সহ বায়োডাটা পাঠান infomvaly@gmail.com
প্রধান খবর
করোনা ভাইরাস সনাক্তকরণ এর গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের কিট প্রস্তুত। | BBC NEWS BANGLA এবার নুসরাত ফারিয়ার অর্ধনগ্ন ছবি ফাঁস, ভক্তদের তোলপাড় | BBC NEWS BANGLA অভিনেত্রীকে অশ্লীলভাবে ধর্ষণের হুমকি, অতঃপর… | BBC NEWS BANGLA দ্বিতীয় বিয়ে করেও সাবেক স্বামীকে সময় দিচ্ছেন অভিনেত্রী! | BBC NEWS BANGLA রোহিঙ্গা সংকট সমাধানে জাতিসংঘ প্রস্তাবের পক্ষে ১৩২ দেশ, ভোট দেয়নি ভারত, বিপক্ষে চীন | BBC NEWS BANGLA সাকিবকে হত্যার হুমকিদাতা গ্রেফতার | BBC NEWS BANGLA অটোপাস নয়, পরীক্ষা দিতে আগ্রহী শিক্ষার্থীরা | BBC NEWS BANGLA একি হাল অপু-নিরবের! | BBC NEWS BANGLA মানি লন্ডারিং মামলায় গ্রেফতার দেখানো হলো সম্রাটকে | BBC NEWS BANGLA এএসপি আনিসুল করিমের মৃত্যুর ঘটনায় মামলা | BBC NEWS BANGLA রায়হান হত্যা মামলায় এসআই আকবর ৭ দিনের রিমান্ডে | BBC NEWS BANGLA অবৈধ হ্যান্ডসেট বন্ধে ৩০ কোটি টাকায় প্রযুক্তি কিনছে বিটিআরসি | BBC NEWS BANGLA থাইল্যান্ডে সেলিম প্রধানের ‘৭ কোম্পানি’ | BBC NEWS BANGLA পুরুষরা বয়স ধরে রাখতে যা করবেন | BBC NEWS BANGLA উৎসবের মরসুমে সঙ্গীর মনে আলো জ্বালতে যা যা করতেই হবে | BBC NEWS BANGLA আবারও বাড়ছে স্বর্ণের দাম! | BBC NEWS BANGLA জুয়া খেলায় বিপাকে তামান্না! | BBC NEWS BANGLA কমলা হ্যারিসকে নিয়ে ১১ বছর আগে মল্লিকা যা বলেছিলেন | BBC NEWS BANGLA আওয়ামী লীগ জনগণের মন জয় করেই ক্ষমতায় এসেছে : কাদের | BBC NEWS BANGLA রায়হান হত্যা : এসআই আকবর গ্রেফতার | BBC NEWS BANGLA রোহিঙ্গা দম্পতির বাসা থেকে কোটি টাকা উদ্ধার | BBC NEWS BANGLA

৫০ বছরের মধ্যে তীব্র উত্তাপের শিকার হবে ৩০০ কোটি মানুষ

  • বুধবার, ৬ মে, ২০২০
  • ৪৯ বার পড়া হয়েছে

আন্তর্জাতিক ডেস্ক : জলবায়ু বিশ্বজুড়ে বেশ কয়েক বছর ধরেই অন্যতম আলোচিত ইস্যু। এর পরিবর্তনের জেরে মানুষকে চরম মূল্য দিতে হবে বলে আশঙ্কা প্রকাশ করে আসছেন বিশেষজ্ঞরা। যা তাদের পূর্ব ধারণার চাইতে তাড়াতাড়ি এবং আরও বেশি পরিধি নিয়ে এই সঙ্কট ধেয়ে আসছে।

২০৭০ সালের মধ্যে জলাবায়ু পরিবর্তনের ফলে বিশ্বের ৩০০ কোটির বেশি মানুষ এমন এলাকায় বাস করবে, যেখানকার উষ্ণ তাপমাত্রা ‘প্রায় বসবাসের অযোগ্য’। যদি গ্রিনহাউস গ্যাস নিঃসরণ উল্লেখযোগ্য মাত্রায় কমানো না যায়, তাহলে পৃথিবীর অধিকাংশ মানুষকে ২৯ ডিগ্রি সেলসিয়াসের চেয়ে গরম আবহাওয়ায় বাস করতে হবে। খবর দ্য গার্ডিয়ান।

প্রসিডিংস অব দ্য ন্যাশনাল অ্যাকাডেমি অব সায়েন্স নামক বিজ্ঞান সাময়িকী প্রকাশিত এক গবেষণা প্রতিবেদনে এই আশঙ্কার কথা বলা হয়েছে। এক্সিটার বিশ্ববিদ্যালয়ের গ্লোবাল সিস্টেমস ইনস্টিটিউটের পরিচালক ও জলবায়ু বিশেষজ্ঞ টিম লেন্টন চীন, যুক্তরাষ্ট্র ও ইউরোপের বিজ্ঞানীদের নিয়ে এই গবেষণা করেছেন।

সাম্প্রতিক এই গবেষণায় হুঁশিয়ারি দিয়ে বলা হয়েছে, জলবায়ু পরিবর্তনের প্রভাবে বিশ্বের অনেক জনবহুল অঞ্চলের তাপমাত্রা মানুষের জন্য অসহনীয় হয়ে উঠবে। উত্তাপের দুর্বিষহ যন্ত্রণা থেকে রেহাই পেতে অনেকেই নিজের বাসস্থান পরিত্যাগ করতেও বাধ্য হবেন। যারা এই অবস্থায় কোথাও যেতে পারবেন না, তাদের প্রচণ্ড উত্তাপের কারণে দীর্ঘ ক্ষরা, অনাহার এবং অর্থনৈতিক সঙ্কটের মুখে পড়তে হবে।

প্রতিবেদন অনুসারে, মানুষের আবাসের গড় তাপমাত্রা ১১-১৫ ডিগ্রি সেলসিয়াস। অল্প কিছু মানুষ গড়ে ২০-২৫ ডিগ্রি সেলসিয়াস তাপমাত্রায় বাস করেন। অর্থাৎ, যেসব অঞ্চলে বাৎসরিক তাপমাত্রা গড়ে ১১ ডিগ্রী সেলসিয়াস থেকে ২৫ ডিগ্রী সেলসিয়াস মূলত সেসব অঞ্চলেই দীর্ঘদিন ধরে মানুষের বসতি গড়ে উঠেছে। বসবাসের জন্য এমন তাপমাত্রাই মানুষের স্বাস্থ্য এবং খাদ্য উৎপাদনের পক্ষে সহনীয়। কিন্তু তাপমাত্রার এই হাজার হাজার বছর স্থায়িত্ব এখন বদলে যাচ্ছে। প্রতিনিয়ত কমছে অনুকূল তাপমাত্রার আওতায় থাকা অঞ্চলের পরিমাণও।

বায়ুমণ্ডলে গ্রিনহাউজ গ্যাস নিঃসরণ বৃদ্ধির প্রবণতা সর্বোচ্চ পর্যায়ে থাকলে, বর্তমানে বিশ্বের এক-তৃতীয়াংশ মানুষ বসবাস করেন এমন অঞ্চলের তাপমাত্রা আগামী ৫০ বছরে সাহারা মরুভূমি অঞ্চলের সবচেয়ে উত্তপ্ত এলাকাগুলোর মতোই হবে।

মানবজাতি ডাঙ্গায় বসবাস করায় ঝুঁকির মাত্রাও বেশি। কারণ সমুদ্রের তুলনায় স্থলভাগের তাপমাত্রা উচ্চগতিতে বাড়ছে। পাশাপাশি আগামীদিনে সবচেয়ে বেশি জনসংখ্যা বাড়বে আফ্রিকা এবং এশিয়ার উষ্ণতম অঞ্চলগুলোতে। জনসংখ্যা ঘনত্ব, প্রাকৃতিক বাস্তুসংস্থানের বিপর্যয় এবং জলবায়ু পরিবর্তনের কারণে এ সময় সাড়ে ৭ ডিগ্রী পর্যন্ত অতিরিক্ত তাপ বাড়তে পারে।

এক্সিটার বিশ্ববিদ্যালয়ের বিজ্ঞানী টিম লেন্টন বলেন, সাগরের তুলনায় ভূমি উষ্ণ হচ্ছে দ্রুত। ফলে ভূমি উষ্ণ হওয়ার হার তিন ডিগ্রির বেশি। উষ্ণ এলাকাগুলোতে জনসংখ্যা বৃদ্ধি হবে, বিশেষ করে আফ্রিকার সাব-সাহারা অঞ্চলে। ফলে গড়ে ওই এলাকার সবাইকে উষ্ণ আবহাওয়ায় বাস করতে হবে।

তিনি আরও বলেন, উষ্ণ এলাকায় মানুষ বৃদ্ধির ফলে তাপমাত্রাও বাড়ছে। বিশ্ব তিন ডিগ্রি উষ্ণ পৃথিবীতে বাসকারীদের তাপমাত্রা ৭ ডিগ্রি বেশি উষ্ণ থাকে।

অবশ্য বিশ্বের তাপমাত্রা যখন ৩ ডিগ্রী সেলসিয়াস বাড়বে, কেবল তখনই মানুষ ভূপৃষ্ঠে সাড়ে ৭ ডিগ্রী বাড়তি উত্তাপের কবলে পড়তে চলেছে।

আলোচিত গবেষণায় এভাবেই সতর্ক করে আরও বলা হচ্ছে, সবচেয়ে ইতিবাচক পরিস্থিতিতেও ১২০ কোটি মানুষ অপেক্ষাকৃত বৈরি জলবায়ু পরিবর্তনের শিকার হতে চলেছেন। বিগত ৬ হাজার বছর ধরে আবহাওয়ার মৌসুমি পালাবদলের জেরে উষ্ণতা হ্রাস-বৃদ্ধির যে চক্র মানবজাতি উপভোগ করেছে, সেটাকে ভাঙবে জলবায়ু পরিবর্তন।

টিম লেনটন বলেন, ‘গবেষণায় উঠে আসা আসন্ন পরিবর্তন আমাকে বাকরুদ্ধ করেছে। প্রথম যখন আমি তাপমাত্রার তথ্যসারণী দেখি, তখন রীতিমতো দুবার তা পরীক্ষা করে দেখেছি। এ পরিবর্তন আসলে মহাদুর্যোগেরই অপর নাম, যা এবার আমাদের বাসস্থানের দিকে শক্ত আঘাত হেনেছে। এটা মানবিক বিপর্যয় সৃষ্টির হুমকি দিচ্ছে। ফলে বিপুল সংখ্যক মানুষকে এখন ‘প্রাণসংহারক’ তাপমাত্রায় নরকযন্ত্রণা ভোগ করতে হবে।’

লেন্টন আরো বলেন, আমার জন্য এই গবেষণা ধনীদের জন্য নয়, যারা শীতাতপ নিয়ন্ত্রিত ভবনে বাস করতে পারবেন এবং যে কোনও কিছু থেকে নিজেকে রক্ষা করতে সক্ষম। আমাদের উদ্বেগের বিষয় হলো আবহাওয়া ও জলবায়ু থেকে যারা নিজেদের বিচ্ছিন্ন করতে পারবে না সেই মানুষেরা।

জলবায়ু পরিবর্তনকে শুধুমাত্র পদার্থ বিজ্ঞান বা অর্থনৈতিক প্রভাবের চোখে না দেখে সাম্প্রতিকতম গবেষণায় একে মানবজাতির বসবাসের পরিবেশে তা কেমন প্রভাব ফেলবে, সেটাকে প্রাধান্য দেওয়া হয়।

সবচেয়ে বেশি প্রভাবিত এলাকাগুলোর মধ্যে রয়েছে উত্তর অস্ট্রেলিয়া, ভারত, আফ্রিকা, দক্ষিণ আমেরিকা ও মধ্যপ্রাচ্যের একাংশ।

দক্ষিণ এশিয়ায় ভারত, পাকিস্তান, বাংলাদেশসহ দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ায় ইন্দোনেশিয়া এবং আফ্রিকার সুদানের ৩০০ কোটি মানুষ আগামী ৫০ বছরের মধ্যেই এ পরিস্থিতিতে পড়বেন। বাংলাদেশে প্রায় ৯০ লাখ মানুষ উচ্চতাপের কবলে পড়বেন। ভারত এবং পাকিস্তানের ক্ষেত্রে যা যথাক্রমে ১২০ কোটি ও ১ কোটি ৮০ লাখ।

গবেষণায় আশঙ্কা প্রকাশ করা হয়েছে, দরিদ্র এলাকাগুলোতে বাসকারী মানুষেরা গরম থেকে রক্ষার ব্যবস্থা করতে পারবে না।

সুত্রঃ প্রাইম নিউজ

ভালো লাগলে এই পোস্টটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই কেটাগরির আরো খবর

Categories

© BBCNewsbangla All rights reserved © 2020. প্রবেশকরুন
Theme Customized By BreakingNews